কমিউনিকেশন সিস্টেম

ব্রডব্যান্ড (Broad Band)

Posted on Updated on

  • ১ Mbps হতে অত্যন্ত উচ্চগতি পর্যন্ত হয়ে থাকে।
  • কো-এক্সিয়াল কেবল ও অপটিকাল ফাইবারে ডেটা ট্রান্সফারে Broad Band ব্যবহৃত হয়।
  • স্যাটেলাইট ও মাইক্রোওয়েভ কমিউনিকেশন এও ব্যবহৃত হয়।
Advertisements

ভয়েজ ব্যান্ড (Voice Band)

Posted on Updated on

  • ৯৬০০ bps পর্যন্ত হয়ে থাকে।
  • সাধারনত টেলিফোনে এই ব্যান্ডউইডথ ব্যবহৃত হয়।
  • কম্পিউটার থেকে প্রিন্টারে কিন্বা কার্ড রিডার থেকে কম্পিউটারে ডেটা স্থানান্তরে এই ব্যান্ডউইডথ ব্যবহৃত হয়।

ন্যারো ব্যান্ড (Narrow Band)

Posted on Updated on

  • ন্যারো ব্যান্ড সাধারনত ৪৫ থেকে ৩০০ bps পর্যন্ত হয়ে থাকে।
  • ধীরগতি ডেটা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়।
  • টেলিগ্রাফীতে ন্যারো ব্যান্ড ব্যবহৃত হয়।
  • একে Sub-Voice Band বলা হয়।

Bandwidth(ব্যান্ডউইডথ) – ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিড

Posted on Updated on

এক স্থান হতে অন্য স্থানে কিন্বা এক কম্পিউটার হতে অন্য কম্পিউটারে ডেটা স্থানান্তরের হারকে ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিড বলে। এই ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিডকে অনেক সময় ব্যান্ডউইডথ বলা হয়। ব্যান্ডউইডথ সাধারনত Bit per Second (bps) -এ হিসাব করা হয়। অর্থাৎ প্রতিসেকেন্ডে যে পরিমান বিট ট্রান্সমিট করা হয় তাকে bps বা Bandwidth বলে।

ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিডকে তিনভাগে ভাগ করা যায়। যথা-

  1. Narrow Band
  2. Voice Band
  3. Broad Band

ডেটা কমিউনিকেশন কী?

Posted on Updated on

কম্পিউটার কিন্বা অন্যকোন যন্ত্রের মাধ্যমে ডেটাকে এক স্থান হতে অন্যস্থানে কিন্বা এক ডিভাইস হতে অন্য ডিভাইসে স্থানান্তরের প্রকৃয়াই হচ্ছে ডেটা কমিউনিকেশন।

ডেটা ট্রান্সমিশন স্পিড