অ্যালগরিদম

অ্যালগরিদম

Posted on Updated on

অ্যালগরিদম শব্দটি এসেছে মুসলিম গণিতবিদ ‘মুসা আল খারিজমী’-এর নাম থেকে। এর সংজ্ঞায় বলা যায় ‘Step by step problem solving procedure’ অর্থাৎ অ্যালগরিদম হচ্ছে কোনো একটি কাজ সম্পন্ন করার জন্য কতক গুলি সুনির্দিষ্ট ও ধারাবাহিক ধাপের সমষ্টি। অ্যালগোরিদমের ধাপ সংখ্যা অবশ্যই সীমিত হতে হবে। কম্পিউটার,মানুষ , রোবট ইত্যাদি অ্যালগোরিদের ধাপগুলো ধারাবাহিকভাবে অনুসরণ করে একটি নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদন করতে পারে। কম্পিউটার বিজ্ঞানে বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য সঠিক অ্যালগোরিদম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একটি অ্যালগোরিদমকে “সঠিক” বলা হয় যদি প্রতিটি ইনপুটের জন্য অ্যালগোরিদমটি সঠিক আউটপুট প্রদর্শন করে। তবে পুরোপুরি নির্ভূল নয় এমন অ্যালগোরিদমও গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে যদি ভূলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখা যায়। একটি অ্যালগোরিদমকে যেকোনো ভাষায় বর্ণনা করা যেতে পারে,সে ভাষাটি হতে পারে বাংলা,ইংরেজির মত মানুষের মৌখিক ভাষা,অথবা সি++,জাভার মত প্রোগ্রামিং ভাষা এমনকি হার্ডওয়্যার ডিজাইনের মাধ্যমেও। তবে যে ভাষাতেও লেখা হোক সমস্যা সমাধানের প্রতিটি ধাপের বর্ণনা অ্যালগোরিদমে থাকতে হবে।

অ্যালগরিদম রচনার জন্য ৪টি উপযুক্ত শর্ত রয়েছে। এগুলো হল:

১. অ্যালগরিদম সহজবোধ্য হবে।

২. প্রত্যেকটি ধাপ স্পষ্ট হবে, যাতে সহজে বোঝা যায়; কোন ধাপই দ্ব্যর্থবোধক হবে না।

৩. সসীমসংখ্যক ধাপে সমস্যার সমাধান করতে হবে। কম্পিউটারের ক্ষেত্রে সীমাবদ্ধ সময়েই সমাধান পাওয়া যাবে।

৪. ব্যাপকভাবে প্রয়োগ করা সম্ভব হবে।

তথ্যসূত্র: উইকিপিডিয়া বাংলা

Advertisements